বাংলার lockdown

মহামারী ধেয়ে আসে , দেশ, ধর্ম, ভাষা কিছু  মানে না।  যাকে সামনে দেখে তাকেই শিকার করে।  পৃথিবীর সব মানুষই ঘরবন্দী , lockdown . আমরাও তাই দিল্লিতে – তবে পশ্চিম বাংলা একটু ব্যতিক্রম।  রীতিমতো বাজার বসছে সকাল সন্ধ্যে  – মাছের বাজারে ভীড় করে মানুষের আনাগোনা।  ফুলের বাজার, মিষ্টির দোকান ও খোলা।  কিছু কিছু এলাকাতে নিয়মের তোয়াক্কা না করে শয়ে শয়ে লোক বাড়ির বাইরে।  পুলিশ দর্শক মাত্র , কাউকে বাধা দেওয়া বারণ।  গাড়ীকরে , মাস্ক পরে announce করাটা অন্যদের হাতে ছাড়লে ভালো হয়ে। 

পশ্চিম বাংলার বেশীর ভাগ হাসপাতালগুলোর অবস্থা খুবই খারাপ।  মাস্ক, ppe kit বিনা চিকিৎসা চলছে।  কিছু জায়গায় homeopathic ডাক্তারকে covid -এর রুগীর কাছে পাঠানো হচ্ছে।  মারা যাওয়ার পর সঙ্গে সঙ্গে দেহ সরানো হচ্ছে না। আমরা জানি ডাক্তারই death certificate লেখে।  কিন্তু পশ্চিম বাংলায় নবান্নে বসে এক audit committee (৫ জন ডাক্তারের ) ঠিক করে যে রুগী covid এ মারা গেছে না অন্য রোগে।  এটা পৃথিবী তে এক বিরল ঘটনা – WHO -ও বলেনি ও আমাদের ICMR ও বলেনি।  সরকার বলবে কি ভাবে মারা গাছে।  কিসের এই লুকোচুরি।  covid – এর মৃত্যুকে  এত ভয়। লোক জানাজানি হয়ে গেলে সরকারের গাফিলতি সামনে এসে যাবে।সামনে election অতএব লোকদের খুশি রেখে চলতে হবে।  Central team এর সঙ্গে এমন ব্যবহার যেন ভিন দেশ থেকে এসেছে।  প্রধানমন্ত্রী পাঠিয়েছেন দিল্লি থেকে।  সব রাজ্যেই গেছে।  পাছে প্রকাশ্যে এসে যায় নিজেদের অকর্মণ্যতা তাই এই পদক্ষেপ পশ্চিম বাংলার সরকারের।  অনবরত রাজ্যপালের সঙ্গে সংঘাত।  কিছু এলাকায় তো পুলিশ ঢুকতেই সাহস করেনা।  আজকাল আবার মার ও খাচ্ছে। 

রবীন্দ্রনাথের লেখা মনে পড়ে যায়।- “কাদম্বরী মরিয়া গিয়া প্রমান করিল সে মরে নাই ” । পশ্চিম বাংলায় covid -এর মৃত্যু-  কিন্তু সরকার প্রমান করিয়া দেয় সে covid – এ মারা যায়নি।  হৃদরোগে মারা গিয়াছে।  রাতের অন্ধকারে কবর দেওয়া হচ্ছে, বাড়ির লোকজনদের না জানিয়ে শেষকৃত্য করা হচ্ছে।  অনৈতিক ও গোপনে কাজ করে সারা বাংলার মানুষকে বিপদের মুখে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে।  মৃতের সংখ্যা সঠিক দেওয়া হচ্ছে না।  বিরোধী পার্টির নেতাদের ঘর বন্দি করে রাখা হচ্ছে যাতে তারা লোকেদের পাশে না দাঁড়াতে পারে।  FIR করা হচ্ছে MP – দের নামে।  রেশন বিলিতে চুরি , কে কার চাল  ডাল খেয়ে নিচ্ছে, সরকার জবাব দিক। 

আসুন সকলে মিলে পশ্চিম বাংলা কে covid মুক্ত করি ও সেখানকার সরকারকে আরও সচেতন হতে ও কঠোর পদক্ষেপ নিতে বাধ্য করি।